গো’পন অঙ্গের দুর্গন্ধ দূর করার কার্যকরী উপায়

গো’পন অঙ্গের দুর্গন্ধ যেমন বিরকিত্কর তেমনি অসহ্য। কারো সাথে শেয়ার ও করা যায় না আবার ডাক্তারের কাছে যেতে লজ্জ্বা করে।বিশেষ করে গরমকালে এই সমস্যাটা একটু বেশি দেখা যায়।

এই সমস্যা সবার ক্ষেত্রে না। শুধু কিছু কিছু ব্যক্তিদের হয়ে থাকে।এই সমস্য আপনার যৌ’ন জীবনের উপর বিরুপ প্রভাব ফে’লে।চলুন দেখা যাক কী’ভাবে এই গো’পন অঙ্গের দুর্গন্ধ দূর করা যায়।

মানুষেরর প্রত্যেক ভাজে কম বেশি গন্ধ থাকে।যেমন বগল,পায়ের পাতা,গো’পন অঙ্গে ছাাড়াও বিভিন্ন অঙ্গে। কী’ভাবে এই দুর্গন্ধ হয়?
* আপনি যদি স্বাস্থবান হয়ে থাকেন, তবে শ’রীরের ভাঁজে ভাঁজে ঘাম জমে যাবে। সেখানে ব্যাকটেরিয়া জন্মায় এবং দুর্গন্ধের সৃষ্টি করে।
* তাছাড়া গো’পন অঙ্গসমূহে ইস্ট বা ব্যাকটেরিয়া জনিত ইনফেকশন থেকে হতে পারে খুবই বাজে দুর্গন্ধ।

* গো’পন অঙ্গসমূহ ভালভাবে পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন না করা, পিরিয়ডের সময় এক প্যাড দীর্ঘক্ষণ ব্যবহার করা ইত্যাদি কারণেও সৃষ্টি হয় দুর্গন্ধ।
* আপনি যদি খুব বেশী টাইট পোশাক অনেক্পষণ ধরে পরিধান করে থাকেন তবে ঘামে দুর্গন্ধ হতে পারে। অনেকের প্রস্রাব লিক করার কারণে দুর্গন্ধ হয়।

কী’ করবেন?
* সবকিছুর সর্বপ্রথম সমাধান হলো পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন থাকা। নিজের গো’পন অঙ্গের যত্ন খুব ভালো’ভাবে নিতে হবে। সর্বদা ভালো অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল সাবান ব্যবহার করা চেষ্ট করুন।

* দুরন্ধ দূর করার জন্য বাজারে পাওয়া বালো মানের গো’পন অঙ্গ পরিষ্কার করার জন্য বিশেষ সাবান এবং শেররের জন্য বডি স্প্রে ব্যবহার করেতে পারেন।

* গো’পন অঙ্গে অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল ও সুগন্ধী পাউডার ব্যবহার করুন।তবে মনে রাখবেন দীর্ঘসময় একই স্থানে পাউডার দিয়ে রাখা ঠিক না।
* আপনার প্যানটি পরার আগে ভা’রোকরে পারফিউম ছিটিয়ে নিন।

* টাইট পোশাক পরা থেকে বিরত থাকুন।কারণ এতে ঘাম বেশি হয়। গো’পন অঙ্গে যদি দুর্গন্ধ হয় তবে ঢিলেঢালা পোশাক পরাই সবচাইতে ভালোেএতে গন্ধ বাড়তে পারে না।

* আপনার কি চুইয়ে চুইয়ে প্রশ্রাব এসে কি প্যানটি ভিজে যায়? এমন সমস্যা অনেক না’রীরই থাকে। যদি তা হয় তো অবিলম্বে ডাক্তারেরপরাম’র্শ নিন।

* পিরিয়ডের সময় একটু বেশি পরিছন্ন থাকুন।আর ভালো কোম্পানির স্যানিটারি ন্যাপকিন ব্যবহার করার চেস্ট করবেন।
* আপনার গো’পন অঙ্গ পরিষ্কার করতে হালকা উষ্ণ পানি ব্যবহার করুন। যতবার টয়লেট ব্যবহার করবেন, প্রতিবার ভালো করে সাবান দিয়ে পরিছন্ন হোন।

আশাকরি উপরের বিশয়গুলো একটু মেনে চললে ভা’রো এবং তাড়াতাড়ি ভা’রো ফল পাবেন।আর এরপরও যদি কোন সমস্যা থাকে তবে অবশ্যই ডাক্তারের কাছে যান। এটা হতে পারে অন্য কোন শা’রীরিক সমস্যার ইঙ্গিত! লজ্জায় নিজের শ’রীরকে অবহেলা করবেন না।দেশে অনেক ভালো ভালো গাইনি ডাক্তার আছেন। জীবনকে সুখময় করতে অবশ্যই তাদের পরাম’র্শ নিন।