লিভারের সব রো গ সারাবে ‘তেঁতুল’, রইল ব্যবহারের নিয়ম

লিভারের সব রো গ সারাবে- আজকাল অনেকেই ফ্যাটি লিভারে ভুগছেন। লিভারে চর্বি জমে এই সমস্যার সৃষ্টি হয়। মুঠো ভরে ওষুধ খেয়ে এই সমস্যা দমিয়ে রাখেন সবাই।

তবে প্রাকৃতিকভাবেও যে লিভার পরিষ্কার করা সম্ভব তা অনেকেরই অজনা। এজন্য দরকার

স্বাস্থ্যকর ডায়েট মেনে চলা। আপনি জানেন কি? এই সমস্যার সমাধান রয়েছে তেঁতুলে।

যেকোনো ধরনের লিভারের সমস্যা মোকাবিলায় প্রস্তুত রয়েছে তেঁতুল। এটি শ’রীর থেকে

ক্ষ’তিকর সব পদার্থ বের করে দেয়। সেই সঙ্গে হজম প্রক্রিয়াও তরান্বিত করে। তেঁতুল লিভার সুরক্ষায় বেশ কার্যকর। এটি খারাপ কোলেস্টেরল ধ্বং’স করে সুস্বাস্থ্য নিশ্চিত করে।

লিভার সুস্থ রাখতে তেঁতুল যেভাবে ব্যবহার করবেন-

দুই মুঠো খোসা ছাড়ানো পাকা তেঁতুল নিন, সঙ্গে এক লিটার পানি ও মধু। একটি ব্লেন্ডারে

তেঁতুল ও পানি মিশিয়ে ভালো করে ব্লেড করুন। এরপর মিশ্রণটি ছেঁকে নিন। সঙ্গে সামান্য মধু মিশিয়ে পান করুন। এই পানীয়টি সারাদিন সংরক্ষণ করতে পারবেন। প্রতিদিন সকাল ও সন্ধ্যায় এই পানীয়টি পান করতে হবে।

এবার জেনে নিন কেন আপনি এই তেঁতুল পানীয়টি প্রতিদিন পান করবেন?

১. তেঁতুলে থাকা ল্যাক্সেটিভ উপাদান কো’ষ্ঠকা’ঠিন্যের সমস্যা সমাধানে বেশ কার্যকর।

২. এই পানীয় শ’রী’রের ক্ষ’তিকর টক্সিন বের করতে সক্ষম। এজন্য লিভারে জমা ফ্যাট গলে যায়। এতে করে আপনার লিভারের বয়স ২০ বছরের মতোই তরুণ থাকবে।

৩. কোলন ক্যান্সারের সমস্যায় অনেকই ভুগে থাকেন। জানেন কি? তেঁতুলের এই পানীয় আপনার কোলনকে পরিষ্কার রাখতে সাহায্য করবে।

৪. উচ্চ মাত্রায় অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট রয়েছে তেঁতুলে। এটি আপনার ত্বককে বুড়িয়ে যাওয়ার হাত থেকে রক্ষা করবে।

৫. হৃদরো গের যাবতীয় সমস্যার সমাধান করবে তেঁতুলের এই পানীয়। কারণ এতে থাকা উপকারী উপাদানসমূহ খারাপ কোলেস্টেরলকে শ’রীর থেকে ধ্বং’স করে।

ধু’মপায়ীর ফুসফুস পরিষ্কারের পাঁচ উপায়

শ’রীরের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ হলেও ফুসফুস প্রতিনিয়ত অবহেলার শি’কার হয়। বাতাসে মিশে থাকা ধূলিকণাসহ ক্ষ’তিকর পদার্থসমূহ সবই ফুসফুস শোষণ করছে প্রতিদিন।

সেই সঙ্গে ধূ’মপানের ফলে গোলাপি ফুসফুস কালো রং ধারণ করছে। এতে ফুসফুস

ক্যা’ন্সা’রসহ বিভিন্ন রো গের ঝুঁকিতে রয়েছেন ধূ’মপায়ীরা। তবে জানেন কি? ঘরোয়া পাঁচ উপায়েই ফুসফুসকে প্রাকৃতিকভাবে পরিষ্কার করা সম্ভব। জেনে নিন কীভাবে-

১. গ্রিন টি’তে রয়েছে প্রচুর অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট। এক কাপ গ্রিন টি স্বাস্থ্যের জন্য কতটা

উপকারী তা স্বাস্থ্য সচেতনরা অবশ্যই অবগত রয়েছেন। এটি শ’রীর থেকে টক্সিন দূর করতে সাহায্য করে। নিয়মিত গ্রিন টি পানের অভ্যাস গড়লে ফুসফুসের স্বাস্থ্য সুরক্ষিত থাকে।

২. সকালে ঘুম থেকে উঠে নাস্তার পূর্বে এক গ্লাস গরম পানিতে তিন টেবিল চামচ লেবুর রস মিশিয়ে পান করুন। এছাড়াও সারাদিনের ডায়েটে অন্তত এক গ্লাস আনারস বা ক্র্যানবেরির জুস রাখুন।

৩. গাজরের জুস ফুসফুস পরিষ্কারে অত্যন্ত কার্যকরী এক উপাদান। প্রতিদিন অন্তত ৩০০ মি.লি গাজরের জুস খাওয়ার অভ্যাস গড়ুন।

৪. শারী রিক বিভিন্ন সুস্থতার দাওয়াই হলো আদা। ঠাণ্ডা-কাশি সারানোর পাশাপাশি ফুসফুস

পরিষ্কারেও আদার জুড়ি মেলা ভার। কাঁচা আদা চিবিয়ে খেলে এক্ষেত্রে সবচেয়ে বেশি উপকার মিলবে। এছাড়াও আদা দশ মিনিট পানিতে ফুটিয়ে চায়ের মত পান করলেও শ’রীরের সব টক্সিন দূর হয়ে যাবে।

৫. প্রতিদিন চা বা সালাদের সঙ্গে চার থেকে পাঁচ টি পুদিনা পাতা রাখুন। এটি ফুসফুসের

বিভিন্ন সং’ক্রমণ থেকে আপনাকে বাঁচাবে। সেই সঙ্গে প্রচুর পানি পান করুন। নিয়মিত ব্যায়াম করলে ফুসফুসের কার্যকারিতা বাড়ে।