দুই স্ত্রীর কাছে ৩ দিন করে থাকবে স্বা’মী, আর একদিন ‘অফ ডে’

প্রকাশ্যে এল এক অদ্ভুত ঘ’টনা। এক পুরু’ষের দুই স্ত্রী হাজির। তারা নিজেদের মধ্যে ভাগ করে নিচ্ছেন স্বা’মীকে। তারাই ঠিক করে দিলেন, কার স’ঙ্গে কতদিন থাকবে স্বা’মী। ঝাড়খণ্ডেররাঁচীতে এই ঘ’টনা ঘটেছে।

দুই ম’হিলা চাইছেন তিনদিন করে প্রত্যেকের কাছে থাকুক স্বা’মী। এমনকি স্বা’মীকে একটা ‘ডে অফ’ও দিচ্ছে স্ত্রী’রা। স্বাভাবিকভাবেই এই মা’মলায় অবাক হয়েছেন সবাই।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম সুত্রে জানা যায়, ব্যক্তির নাম রাজেশ। তাঁর দুই স্ত্রী। কিন্তু, সময় কা’টানো নিয়ে দুই স্ত্রী’র মধ্যে ঝামেলা তৈরি হওয়াতেই সমস্যা হয়। পু’লিশের কাছে হাজির হয় দু’জনে। প্রায় প্রত্যেক দিনই থানায় গিয়ে হাজির হচ্ছিল তারা। আর তাতে বেজায় বিপাকে পড়ে পু’লিশ।

কিছুদিন দ্বিতীয় স্ত্রী ফের হাজির হন থানায়। গিয়ে বলেন, ‘পাঁচ দিন হয়ে গিয়েছে, স্বা’মী আসেনি। কিছু একটা করুন।’ এরপরই পু’লিশ দুই স্ত্রী’কে নিয়ে থানায় আসতে বলে রাজেশকে। পু’লিশের উপস্থিতিতেই সমঝোতায় আসে তারা।

পু’লিশের সামনেই ঠিক হয়, সপ্তাহের প্রথম তিন দিন প্রথম স্ত্রী’র কাছে থাকবে রাজেশ, পরের তিনদিন থাকবে দ্বিতীয় স্ত্রী’র কাছে। আর এক দিন ‘অফ ডে।’ গত বছরের শেষে একটি ঘ’টনায় দুই স্ত্রী’র কাছে মার খেয়েছিলেন এক যুবক।

মাত্র ২৬ বছরেই দুটো বিয়ে সেরে ফে’লেন এক যুবক। থেমে থাকেননি, আরও একটা বিয়ের জন্য প্রস্তুত হচ্ছিলেন তিনি। এরপরই প্রথম দুই স্ত্রীয়ের কাছে বেধড়ক মার খেলেন তিনি।

আর এই পি’টুনি যেখানে সেখানে নয়, একেবারে থানার সামনেই হল। তামি’লনাড়ুর কোয়েম্বাটোরে এই ঘ’টনা ঘটেছিল। ২০১৬ য় প্রথম বিয়েটি করেন, দিব্যি চলছিল সংসার। তারপর আবার এ বছরে এপ্রিল মাসেও আরেকটি বিয়ে করে ফে’লেন।

এরপর ফের ম্যাটরিমনিয়াল সাইটে দিয়ে দিয়েছিলেন নিজের ছবি। কারণ আরও এক ম’হিলাকে বিয়ে করতে চান তিনি। ঘ’টনার কথা জানার পর থেকেই , তাঁর প্রথম দুই স্ত্রী বারবার তাঁর অফিসের সামনে অ’নশনে য় বসছিলেন।

শেষ পর্যন্ত পু’লিশ গিয়ে সেই অ’নশন তোলে, দুই স্ত্রী এবং অ’ভিযুক্ত যুবককে থানায় ডাকেন। থানার সামনে পৌঁছে, দুই স্ত্রী এবং তাঁদের পরিজনরা ওই যুবকের উপর গুছিয়ে হাতের সু’খ করে নেন।