প্রতিদিনের যে ৬টি খা’বার ক্যা”ন্সারের ঝুঁ’কি বা’ড়ায় সবচেয়ে বেশি, জেনে এখনই স’চেতন হোন

বেশিরভাগ মানুষই মনে করেন ম’দপা’ন এবং ধু’মপান করলেই বুঝি শুধু ক্যা’ন্সারের ঝুঁকি বাড়ে। কিন্তু আপনি প্রতিদিন খাচ্ছেন এমন কিছু খাবারও আপনার ক্যা’ন্সারে আ’ক্রান্ত হওয়ার ঝুঁ’কি বাড়াচ্ছে। ক্যা’ন্সার থেকে বাঁচতে চাইলে আজই এই খাবারগুলো খাওয়া বাদ দিতে হবে। আসুন জেনে নেওয়া যাক এমন ৬টি খাবারের কথা।







১. মাইক্রোওয়েভে তৈরি পপকর্ন
এ খাবার খাওয়ার অভ্যেস অনেকেরই রয়েছে। টিভির পর্দায় চোখ রেখে অথবা সিনেমা হলে হাতে পপকর্ন থাকলে ভালই সময় কেটে যায়। আর মাইক্রোওয়েভে তা বানানোও বেশ সোজা। প্যাকেট কেটে টাইম অনুযায়ী মাইক্রোওয়েভ অন করে দিলেই হল। তবে এই পপকর্ন দেখতে যতটা সুন্দর আর খেতে যতটা সুস্বাদু শরীরের পক্ষে এটি ততটাই ক্ষ’তিকর। এতে ফুসফুসে ক্যা’নসারের সম্ভাবনা বাড়ে। তবে অল্প তেলে গ্যাসে পপকর্ন বানিয়ে নিলে কোনো স’মস্যা হবে না।







২. ক্যানজাত খাবার
টিনের ক্যানে যেসব খাবার কিনতে পাওয়া যায় তা নিয়মিত খেলে ক্যা’ন্সারের স’ম্ভাবনা বাড়ে। টিনের পাত্রে বিসফেনল-এ বা বিপিএ থাকাতেই শরীর অ’সুস্থ হওয়ার ঝুঁ’কি বাড়ে।

৩. রিফাইন্ড সুগার
যদি ভেবে থাকেন ব্রাউন অথবা রিফাইন্ড সুগার কিউব বেশি স্বা’স্থ্যকর, তাহলে ভুল করছেন। কারণ এতে সুন্দর রং ও গ’ন্ধ আনার জন্য মেশানো হয় এক ধরনের গুড়। তাই রিফাইন্ড সুগার এড়িয়ে চলুন। বরং মধু অথবা বাজারে বিক্রি সাধারণ চিনি খেতেই পারেন।







৪. কার্বোনেটেড কোমল পানীয়
দোকান থেকে ঠাণ্ডা পানীয় কিনে পান করার অভ্যেস অনেকেরই। কিন্তু খাবার তালিকা থেকে এটি বাদ রাখাই ভাল। এতে বেশি পরিমাণ কর্ন সিরাপ ও কে’মিক্যাল থাকায় নরম পানীয় শরীরের পক্ষে ক্ষ’তিকর। কার্বোনেটেড পানীয় দূরে রাখলে দূ’রে থাকবে ক্যা’ন্সারও।

৫. ডায়েট ফুড
যে সব খাবারের প্যাকেটে ডায়েট শব্দটির উল্লেখ থাকে, তা দেখেই দুর্বল হয়ে পড়বেন না। তাকে স্বাস্থ্যকর ভাবারও কোনো কারণ নেই। সাধারণ খাবারের থেকেও অনেক সময় এই খাবার বেশি অ’স্বাস্থ্যকর হয়ে থাকে। শরীরের ওজন কমাতে সাহায্য করলেও এর পার্শ্ব প্র’তিক্রি’য়াও রয়েছে। যা ক্যা’ন্সারের অন্যতম কারণও হতে পারে।







৬. ভাজাভুজি খাবার
চিপস আর স্ন্যা’কসের প্যাকেটগুলো আপনাকে যেন চু’ম্বকের মতো টানে। নিজেকে সামলে নেওয়াই ভাল। আসলে এসব খাবারের গোড়াতেই গলদ। বেশ অ’স্বাস্থ্যকর’ভাবেই এর প্র’স্তুতি হয়। আর সেখানেই লুকিয়ে রোগ। তাই লোভ সংবরণই শ্রেয়।