গৃহবধূকে ঘুমের ও’ষুধ খাইয়ে ধ’র্ষণ

সড়ক ও জনপথ (সওজ) কুমিল্লা কার্যালয় ক্যাম্পাসের মসজিদের মুয়াজ্জিন মাজহারুল ইসলাম বাবুলের বি’রুদ্ধে এক গৃহবধূকে ঘুমের ও’ষুধ খাইয়ে ধ’র্ষণের অভিযোগে মা’মলা

হয়েছে। বাবুল জে’লার চান্দিনা উপজে’লার মাধাইয়া সংলগ্ন দোতলা মুন্সিবাড়ির শাহ আলমের ছেলে এবং নগরীর মধ্যম আশ্রাফপুর এলাকায় ভাড়া থাকে। তার বি’রুদ্ধে না’রী ও শি’শু

নি’র্যাতন দ’মন আইনে সদর দক্ষিণ মডেল থানায় মা’মলা হয়েছে। এদিকে গতকাল দুপুরে মোবাইল ফোনে ভি’কটিম ও তার স্বা’মী অভিযোগ করে বলেন, মা’মলাটি প্রত্যাহার করে

নেয়ার জন্য অ’ভিযুক্ত বাবুল স্থানীয় প্রভাবশালী ও ব’খাটেদের মাধ্যমে নানাভাবে হু’মকি দিয়ে আসছে। তাদের হু’মকির মুখে ভাড়া বাসা ফে’লে অন্যত্র চলে এসেছি। তারা অবিলম্বে মুয়াজ্জিন বাবুলকে গ্রে’প্তারের জন্য দাবি জানিয়েছেন।

মা’মলার বা’দী ও অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ভি’কটিম (২৭) কুমিল্লা নগরীর মধ্যম আশ্রাফপুর এলাকায় ভাড়া থাকেন। তার স্বা’মী গত এক বছর ধরে লক্ষ্মীপুর জে’লার রায়পুর উপজে’লার একটি হেফজখানার শিক্ষক।

তিনি প্রতি মাসে দুই-তিনবার স্ত্রী-স’ন্তানদের নিকট আসা-যাওয়া করে থাকেন। সড়ক ও জনপথ কার্যালয়ের মসজিদের মুয়াজ্জিন মাজহারুল ইসলাম বাবুল (৩০) তাদের পাশাপাশি

ভাড়া থাকেন। গত ২৬শে সেপ্টেম্বর রাতে ভি’কটিমের বুকে প্রচন্ড ব্য’থা অনুভব হয়। কিন্তু তার স্বা’মী লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে কর্মস্থলে থাকায় ও’ষুধ এনে দিতে তিনি মুয়াজ্জিন বাবুলের

সহায়তা চান। এতে বাবুল কৌশলে বুকে ব্য’থার ও’ষুধ খাওয়ানোর নাম করে ভি’কটিমকে অতিরিক্ত ঘুমের ও’ষুধ খাইয়ে অবচেতন করে ধ’র্ষণ করেন। এদিকে ভি’কটিম ধ’র্ষণের

ঘ’টনা টের পেয়ে তার হাত থেকে বাঁচার জন্য ধ’স্তাধ’স্তি করলে ভি’কটিমের দুই মে’য়ে ঘুম থেকে উঠে চি’ৎকার শুরু করে। এতে বাবুল তাদেরকে বেধড়ক পে’টায়। এ সময় বাবুল

ভি’কটিমকে হ’ত্যার হু’মকি দিয়ে জো’রপূর্বক বিবস্ত্র অবস্থায় মোবাইলে ছবি তোলেন ও ভিডিও ধারণ করেন এবং এ ঘ’টনা তার স্বা’মী কিংবা অন্য কাউকে জানালে ছবি ও ভিডিও ফেসবুক-ইন্টারনেটে ছেড়ে দেবেন বলে হু’মকি দেন। এদিন মুয়াজ্জিন বাবুলের স্ত্রী স’ন্তানদের নিয়ে বাপের বাড়িতে ছিলেন। ভি’কটিমের স্বা’মী ও মা’মলার বা’দী সাংবাদিকদের

জানান, এ ঘ’টনায় নিরুপায় হয়ে কুমিল্লা না’রী ও শি’শু নি’র্যাতন দ’মন ট্রাইব্যুনাল-১ এর আ’দালতে বা’দী হয়ে মুয়াজ্জিন মাজহারুল ইসলাম বাবুলের বি’রুদ্ধে মা’মলা দা’য়ের

করি। আ’দালত অভিযোগটি এফআইআর করার জন্য কুমিল্লা সদর দক্ষিণ মডেল থানার ওসিকে নির্দেশ দিয়েছেন। তিনি আরো জানান, মা’মলাটি প্রত্যাহার করে নেয়ার জন্য

অ’ভিযুক্ত বাবুল স্থানীয় প্রভাবশালী ও ব’খাটেদের মাধ্যমে নানাভাবে হু’মকি দিয়ে আসছে। এখন আমরা নিরাপত্তাহীনতায় আছি। অবিলম্বে মুয়াজ্জিন বাবুলকে গ্রে’প্তার ও শা’স্তির দাবি

জানাচ্ছি। সদর দক্ষিণ মডেল থানার ওসি নজরুল ইসলাম জানান, আ’দালতের নির্দেশে অভিযোগটি থানায় নিয়মিত মা’মলা হিসেবে রেকর্ড করা হয়েছে। আ’সামি বাবুলকে গ্রে’প্তারের জন্য তার এলাকায় ও বিভিন্ন স্থানে অ’ভিযান অব্যাহত আছে।