হেলমেটের অজুহাতে মাস্ক না পরায় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের জরিমানা

করোনাভাইরাস সংক্রমণে জনসাধারণকে সচেতন বৃদ্ধি করার লক্ষ্যে একযোগে রাজধানীর ৪টি স্থানে র‍্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান চলছে। শাহবাগে অভিযান চলাকালে ফাহিম মোনায়েম নামের এক মোটরসাইকেল আরোহী হেলমেটের অজুহাতে মাস্ক না পরায় ৩০০ টাকা জরিমানা করেছে র‍্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত।

বৃহস্পতিবার (২৬ নভেম্বর) দুপুর ১২টা থেকে শাহবাগে অভিযান পরিচালনা করেছেন র‍্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পলাশ কুমার বসু।

তিনি বলেন, ‘এক মোটরসাইকেল আরোহী হেলমেটের অজুহাতে মাস্ক না পরায় তাকে ৩০০ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। শাহবাগে মাস্ক না পরায় দুপুর ১টা পর্যন্ত ১৮ জনকে বিভিন্ন অংকে জরিমানা করা হয়। অভিযান চলছে, অভিযান শেষে বিস্তারিত জানানো হবে।’

সরেজমিনে দেখা যায়, দিনমজুর, রিকশাচালক, গাড়িচালক, ছোট-বড় পরিবহন কিংবা পরিবহন সংশ্লিষ্টরাই মাস্কের ব্যবহার তেমন করছে না। এ কারণে তাদের মধ্যে বিনামূল্যে মাস্ক বিতরণ, করোনার সচেতনতা তৈরি ও জরিমানাও করছে র‍্যাব।

র‌্যাব জানায়, ‘সবাই মাস্ক ব্যবহার করুন, মাস্ক পরে করোনামুক্ত থাকুন’, ‘নো মাস্ক নো সার্ভিস’, ‘ঘর থেকে বের হলে মাস্ক পরুন’, ‘সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখুন’, এই প্রতিপাদ্যে এই অভিযান চলছে।

এদিকে, মাস্ক না পরায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক‌্যাল বিশ্ববিদ্যালয় ও হাসপাতালের (বিএসএমএমইউ) নার্সের ড্রাইভার মনিরুল ইসলামকে ৩০০ টাকা জরিমানা করেছে র‌্যাবের ভ্রাম‌্যমাণ আদালত।

এর আগে, জনগণ যেন মাস্ক ব্যবহারে বাধ্য হয় সেজন্য সরকার ২০১৮ সালের সংক্রমণ ব্যাধি বিশেষ ক্ষমতা আইন পাস করে। এ আইনের আওতায় যারা মাস্ক ব্যবহার না করবে তাদের জরিমানার বিধান রাখা হয়। পাশাপাশি সম্প্রতি সরকারি-বেসরকারি অফিস আদালতে ‘নো মাস্ক, নো এন্ট্রি’ অবলম্বন করেছে সরকার।