মাস্ক পরলেও লিপস্টিক পরবই, পুজো’র সাজ নিয়ে আরো যা বললেন শ্রাবন্তী

পুজো প্রায় এসেই গেল, তবুও পুজো পুজো গন্ধটা কেমন যেন উ’ধাও। মহা’ল’য়ার এত’দিন পরেও বাঙলি’র মন থেকে পুজো’র আ’নন্দ’টা কে যেন চু’রি করে নি’ছে। ২০২০-র দু’র্গপু’জোটা ঠিক যে কে’মন হতে চলেছে, এর স’দুত্তর প্রা’য় কারোর কাছেই নেই। আম-আ’দমি থেকে তা’রকা, এবার স’কলের ‘কাছেই পু’জোটা মন খা’রাপের।

বি’ষা’দের সা’নাই থেমে, ঢাকের বা’দ্যি শোনা যাবে কি’না, তা বুঝতে গে’লে আরও কিছুটা অ’পে’ক্ষায় থাকতেই হবে। অ’ন্যবা’রের থেকে এবার পু’জোটা সত্যিই আ’লা’দা, তারই মাঝে যত’টা স’ম্ভব শারদ উৎস’বের আ’নন্দ উপ’ভো’গ করার চে’ষ্টা ক’রবেন বলে জা’নালেন অ’ভি’নেত্রী শ্রা’বন্তী চ’ট্টোপা’ধ্যায়।

মন খা’রাপের পু’জো নিয়ে কথা বললেন Zee ২৪ ঘণ্টা ডট কমের সঙ্গে। পুজো কী’ভাবে কা’টা’বে’ন? প্রশ্ন ক’রতেই শ্রা’বন্তী বললেন…

শ্রাবন্তী : এই ম’হামা’রীতে কী’ভাবে আ’র পু’জো কা’টা’বো…। পরি’বারে’র সঙ্গে, আর খুব কাছের লো’কজ’নের স’ঙ্গে’ই আ’মা’র ২০২০-র পু”জো’টা কাট’বে। আর যতটা পারবো, পু”জো’তেও সুর’ক্ষা মেনে চলা’র চে’ষ্টা করব, নই’লে’ই তো বিপদ।

কে’না’কা’টা কিছু কি করেছ?

শ্রাবন্তী : কে’না’কা’টা কিচ্ছু হয়নি, কিচ্ছু না। এত কাজের চাপ কে’না’কা’টার সম’য়ই পা’চ্ছি না। আর স’ত্যি কথা ব’লতে অ’নলাই’নে কেনা’কা’টা আ’মা’র পছন্দ নয় খুব একটা। চোখে দেখে ট্রা’য়া”ল দিয়ে কেনা’কা’টা না করতে পা’রলে পু’জো’র কেনা’কা’টার ম’জা’টাই নেই। বাড়ির লো’কজ’নের জন্যও কে’না’কা’টা ক’রতে পারি’নি। তবে কা’জ শেষ করে, হা’তে একটু স’ময় পে’লেই পরি’বা’রের জন্য ফটা’ফ’ট কে’না’টা সেরে ফেল’ব। (হাসতে হাসতে)

পু’জোয় কী’ পরবে, কিছু ঠি’ক করেছ?

শ্রাবন্তী : পুজো’র সময় আমি এ’ক্কেবা’রেই ‘ট্রা’ডিশ’নাল’ প’রতে প’ছন্দ করি। পু’জো’তে আমি এক’দম বাঙা’লি, পার’ফেক্ট বা’ঙা’লি যাকে বলে (হাসি)। পু’জো’র সা’জে’র জন্য আমি বাঙা’লিয়ানা’তেই বিশ্বা’সী। তাই অব’শ্যই শা’ড়ি পরব। নাহলে একটু আ’নার’ক’লি কিংবা ফি’উ’শন চল’তে পারে (হাসি)।

শেষ ছবি ‘দি’ল বেচা’রা’-র জন্য সু’শান্ত কত পা’রিশ্র’মিক নি’য়েছি’লেন জানেন!
”আমা’র ভা’ই’কে হা’রি’য়েছি, প্রতিদিন হৃদয় থেকে র”ক্ত’ক্ষ’রণ হচ্ছে,” আ’বেগ’ঘ’ন সু’শা’ন্তের দিদি

গয়’না কী’ প’রবে? সেটা তো বল’লে না…

শ্রাবন্তী : আমা’র গয়না খুব বেশি পর’তে ভালো লা’গে না, বি’শ্বা’স করো…। যতটা না পরলে নয়, যতটু’কু’তে আমি স্ব’চ্ছ’ন্দ, ঠিক তত’টাই পরি । (হাসি)

আর সা’জগো’জ? মা’স্কের মধ্যে লি’প’স্টিক লা’গা’নো’ তো ভীষ’ণ মুশ’কিল…

শ্রাবন্তী : (থা’মি’য়ে দিয়ে) না, না, মা’স্ক পর’লেও আমি লি’পস্টি’ক পরি ও পরবো’ও। ওটা আ’মা’র পছ’ন্দ। খুব খুব পছ’ন্দ। (হাসি)

পুজো’র কো’ও উ’দ্বো’ধন, বা কোনও অনুষ্ঠা’নে যো’গ দে’ওয়ার প্র’স্তা’ব কি রয়ে’ছে?

শ্রাবন্তী : পুজো’র কো’নও ও’পেনিং থাকবে বা অনু’ষ্ঠা’নে যেতে হবে কিনা এখনও জানা নেই। কিছুই এখনও ফা’ই’নাল হয়নি। আর এম’নি বের হবো কি’না যদি জি’জ্ঞে’স করো, তাহলে পু’জোতে এক’দম’ই বের হবো না বললে তো মিথ্যা বলা হয়। তবে যত’টা কম বের হওয়া যায়। কা’ছের মানু’ষগু’লোর সঙ্গেই সময় কা’টা’নো’টা বেশি ভালো।

আ’রবা’নাতেই তো পুজো হয়…

শ্রাবন্তী : হ্যাঁ, হয় তো। আর’বা’নার পুজো’তেই থাকব। আর টু’কটা’ক বের হবো।

বি’য়ের পর এটা তো’মা’র দ্বি’তীয় পুজো, রোশন কী’ দিচ্ছে?

শ্রাবন্তী : ওটা এখনও সি’ক্রে’ট, তবে ও যেটা দেবে, সে’টা’ই নে’বো। (হাসি)