নন-এমপিও শিক্ষকদের জন্য বিরাট বড় সুখবর

নন-এমপিও শিক্ষকদের – সরকারঘোষিত এমপিওভুক্ত প্রতিষ্ঠানগুলোর যেসব শিক্ষকরা এমপিওভুক্ত হতে পারছিলেন না অবশেষে জটিলতা কাটছে তাদের। এমপিওভুক্তির ক্ষেত্রে এসব প্রতিষ্ঠান শর্ত ছিলো, ‌‘নন-এমপিও শিক্ষকরা এমপিওভুক্তি দাবি করতে পারবেন না’। সেই শর্ত শিথিল করতে যাচ্ছে বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ (এনটিআরসিএ)।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। জানা গেছে, সরকারঘোষিত এমপিওভুক্ত আড়াই হাজারের বেশি প্রতিষ্ঠানে দ্বিতীয় নিয়োগ চক্রে এনটিআরসিএর সুপারিশ পেয়ে নিয়োগ পেলেও শিক্ষকরা এমপিওভুক্ত হতে পারছিলেন না। কারণ, তাদের সুপারিশপত্রে শর্ত ছিল নন-এমপিও পদে সুপারিশপ্রাপ্তরা এমপিও দাবি করতে পারবেন না। যার কারণে শিক্ষকদের এমপিও আবেদন মাঠ পর্যায় থেকে গ্রহণ করা হচ্ছিল না। এ জটিলতার সমাধান দিয়েছে এনটিআরসিএ।

বুধবার এনটিআরসিএর শিক্ষাতন্ত্র ও শিক্ষামানের সদস্য (যুগ্মসচিব) ড. কাজী আসাদুজ্জামান জানান, মাঠপর্যায়ের কর্মকর্তাদের বিষয়টি জানিয়ে এনটিআরসিএ থেকে চিঠি দেয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, দ্বিতীয় নিয়োগ চক্রে নন-এমপিও পদে সুপারিশকৃতদের সুপারিশপত্রে বলা ছিল, নন-এমপিও পদে সুপারিশকৃত প্রার্থীরা কখনো এমপিও সুবিধা দাবি করতে পারবেন না। তবে এ শর্ত বাতিল করা হয়েছে। এখন থেকে এমপিওভুক্ত প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকদের এমপিও প্রাপ্তিতে কোনো শর্ত লাগবে না।

আরও পড়ুন=ক্রিকেট খেলে ভাইরাল হওয়া মা-ছেলের সঙ্গে দেখা করেছেন বাংলাদেশ জাতীয় দলের ক্রিকেটার মুশফিকুর রহিম। বুধবার বনানী মাঠে এই খুদে ক্রিকেটার ও তার মা ঝর্ণা আক্তার চিনিকে আমন্ত্রণ জানান মুশফিক। সেখানেই সিনান ও তার মায়ের সাথে কুশল বিনিময় করেন মুশফিক এবং উপহার তুলে দেন।

ছোট্ট ইয়ামিনকে উপহার হিসেবে ব্যাট, জার্সি ও হ্যান্ড গ্লাভস দেন মুশফিক।মুশফিকুর রহিমের সঙ্গে মা-ছেলের দেখা করার ছবিটি এখন ভেসে বেড়াচ্ছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।জানা গেছে, আরামবাগের একটি মাদ্রাসার ছাত্র ইয়ামিন সিনান। পড়াশোনার পাশাপাশি কবি নজরুল ক্রিকেট একাডেমিতে অনুশীলন করে সে। তবে সেদিন তার সতীর্থ কিংবা কোচ নির্ধারিত সময়ে না পৌঁছানোয় মায়ের সঙ্গেই অনুশীলনে নেমে পড়েছিল ছোট্ট ইয়ামিন।তবে মা-ছেলের ক্রিকেট খেলার সেই ছবি নিয়ে হয়েছে নানা আলোচনা-সমালোচনা। সন্তানের আবদার রক্ষা করে তাকে আনন্দ দেওয়ার জন্য বোরকা পরা অবস্থায়ও ক্রিকেট খেলেছেন বলে সব সমালোচনাকে উড়িয়ে দিয়েছেন মা ঝর্ণা আক্তার।