স্বামী মোশাররফকে ডিভোর্স দেওয়ার কারণ জানালেন মুনমুন

সম্প্রতি ঢাকাই সিনেমার চিত্রনায়িকা মুনমুনের সঙ্গে তার স্বামী মীর মোশাররফ হোসেনের ডিভো’র্স হয়েছে। মডেল, অভিনেতা ও প্রযোজক মোশাররফ হোসেনের ঠিকানায় ডিভো’র্স চেয়ে চিঠি পাঠিয়েছেন মুনমুন। কিন্তু এর কোনো সঠিক কারণ খুঁ’জে পাচ্ছেন না মোশাররফ। তবে মুনমুনই জানালেন এই বি’চ্ছে’দের পেছনের গল্প।

অন্যান্য সবার মত করোনার লকডাউনে মুনমুনের হাতের টাকাও শেষ হয়ে যায়। তার দুই সন্তান ও স্বামীকে নিয়ে পুরো সংসার তাকেই চালাতে হতো। অনেক দিন ধ’রেই স্বামীকে বলছিলেন, সিনেমা বানানোর জন্য টাকা খরচ না করে ব্যবসা শুরু করতে। কিন্তু তিনি এ বিষয়টি কানে নেননি। এমনকি সংসারের খরচেও কোন টাকা পয়সা দিচ্ছিলেন না তার স্বামী।

এক পর্যায়ে উপায় না পেয়ে স্টেজ ও যাত্রায় নাচ শুরু করলেন ঢালিউডের এক সময়ের নামকরা নায়িকা মুনমুন। কিন্তু তার একপর্যায়ে মনে হলো, ‘আর পরলাম না।’ ব্যাস, তখনই ডিভোর্স হয়ে যায় তাদের। মুনমুন বলেন, আমার ‘পাগল প্রেমিক’ ছবিটি নিয়েই আমাদের মধ্যে মা’নসিক দ্ব’ন্দ্ব সৃষ্টি হয়। অনেক টাকা বিনিয়োগ করেও ছবিটি নিয়ে এগোতে পরছিলাম না। এদিকে লকডাউনে আমার হাত প্রায় খালি হয়ে আসে।

মুনমুন বলেন, আমি তাকে বলেছিলাম, ছবি বানানোর চিন্তা বাদ দিয়ে ব্যবসা বাণিজ্যের কথা ভাবতে। কিন্তু সে ব্যবসা নয়, সিনেমা নিয়েই থাকতে চায়। তখন আমার কাছে মনে হল আমি আর পরলাম না। মুনমুনের অ’ভিযো’গ, স্বামী হিসেবে পরিবারকে সে না দিত সময়, আর না দিত পরিবারের খরচ। সংসার চালাতে মুনমুনকে স্টেজ ও যাত্রায় নাচতে হতো। আর মোশাররফ তার নিজের রোজগারের টাকা ঢালতেন সিনেমা নির্মাণের পেছনে।