নামাজ পড়া অব’স্থায় শিশু জুবায়েরের মৃ’ত্যু, জা’নাজা ও দা’ফনের আগে মা’রা গেলেন বাবাও!

নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লা থানাধীন পশ্চিম তল্লা এলাকার বাইতুস সালাম মসজিদে বি’স্ফো’রণে নিহ’ত শিশু জুবায়েরের লাশ গ্রামের বাড়ি রাঙ্গাবালীতে এসে পৌঁছেছে তখন। জা’নাজা ও দা’ফনের ‘প্রস্তুতি চলছিল। ঠি’ক এমন সময় খবর আসে, তার বাবা জুলহাসও না ফেরার দেশে চলে গেছেন।

হৃ’দয়বিদারক এ খবরে আত্মীয়স্বজনদের মধ্যে শো’কের মাত্রা আরও বেড়ে যায়। আ’হাজারিতে আকাশ-বাতাস ভা’রি হয়ে ওঠে। জানা গেছে, জুলহাস ও তার ছেলে জুবায়ের শুক্রবার এশার নামাজ আদায় করতে নারায়ণগঞ্জ শহরের পশ্চিম তল্লা এলাকার বাইতুস সালাম মসজিদে যান। সেখানে বি’স্ফো’রণের ঘ’ট’নায় বাবা ও ছেলে অ’গ্নিদ’গ্ধ হয়। আশ’ঙ্কাজনক অব’স্থায় দুজনকে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ইউনিটে নেয়া হলে রাত ১টার দিকে ৭ বছরের শিশু জুবায়ের মা’রা যায়। আর চিকিৎসাধীন বাবার অবস্থাও ছিল আশ’ঙ্কাজ’নক।

এদিকে জোবায়েরের লা’শ তার মায়ের কাছে হ’স্তান্ত’রের পর রোববার ভোরে গ্রামের বাড়ি পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলার বাহেরচর গ্রামে এসে পৌঁ’ছায়। লা’শ দা’ফন-কা’ফনের প্র’স্তুতিকালে খবর আসে, তার বাবা সলেমান জুলহাসও (২৮) মা’রা গেছেন। এমন খবরে তাদের আত্মীয়স্বজনদের মধ্যে শো’কের মাত্রা যেন পাহাড়সমান বেড়ে যায়।