যেসব নারী স্ত্রী হিসেবে ভালো হয়ে থাকেন

আমা’দের সমাজে অধিকাংশ পুরুষদেরই ধারণা শান্ত স্বভাবের নারীরাই স্ত্রী হিসেবে ভালো হন। তবে মনোবিদরা বলছেন এর উল্টো কথা। তাদের মতে, যে নারীরা তুলনামূলক কিছুটা চঞ্চল স্বভাবের হয়ে থাকেন তারা একটু বেশি ভালো স্ত্রী হয়ে থাকেন।

গবেষকদের মতে, চঞ্চল স্বভাবের নারী, যাদের কাণ্ডকারখানা আর পাঁচজনের চেয়ে খানিকটা আলাদা। তারাও ভালো স্ত্রী হন। এর পেছনে যথার্থ কারণ ব্যাখ্যা করেছেন মনোবিদরা। চলুন দেখে নেই কারণগু’লো-

আপনাকে আগলে রাখবেন

এদের সামনে যদি স্বামী বা কোনো প্রিয়জনকে কেউ অ’পমান করেন, তবে আর রক্ষে নেই। যতক্ষণ না অ’পমানকারীকে মাথা নত করাচ্ছেন, ততক্ষণ ক্ষ্যান্ত হন না।

এনার্জিতে ভরপুর

এরা খুব অনুপ্রেরণাদায়ক প্রকৃতির হয়। শুধু নিজেরাই নন, এদের স’ঙ্গে যারা থাকেন তারাও সান্নিধ্যের গু’ণে অনুপ্রাণিত হয়ে উঠবেন।

হার না মানা

এদের মনের জোর এতটাই বেশি হয় যে তারা হার মানতে জানেন না। অনেকেই যে পরিস্থিতিতে হাল ছেড়ে দেয়, সেখানে তারা সে পরিস্থিতিতে লড়াই চালিয়ে যান। যতক্ষণ না জিতে যাচ্ছেন। নিঃসন্দে’হে বলা যায়, এ রকম জীবনস’ঙ্গিনী পাওয়া ভাগ্যের বি’ষয়।

প্রটেক্টিভ

এই স্বভাবের নারীরা খুবই প্রটেক্টিভ হয়ে থাকেন। তাদের সামনে তার প্রিয়জনকে কেউ অ’পমান করে যেতে পারবে না। অন্যদিকে নিজেকেও বেশ ভালই প্রটেক্ট করতে পারেন এমন নারীরা।

অসাধারণ প্রেমিকা

আদর্শ প্রেমিকা বলতে যা বোঝায় এদের মাঝে তা সহজেই পাওয়া যায়। ভালোবাসার জন্য আলাদা কোনো দিনের প্রয়োজন হয় না। তার স’ঙ্গে থাকলে যে কোনো দিনই বিশেষ দিন বলে মনে হবে। অনেকেই ধারণা বিয়ের পরে জীবন থেকে প্রেম হারিয়ে যায়। কিন্তু চঞ্চল স্বভাবের মেয়েরা অনেকটাই আলাদা হয়ে থাকেন।

সৃজনশীল

আসলে সৃজনশীল মস্তিষ্কের জন্যই তারা আর পাঁচজনের থেকে আলাদা হন। চিন্তা ও মননে তারা খুবই সৃজনশীল প্রকৃতির হয়ে থাকেন। ভিন্ন ও আলাদা কিছু ভাবতে তাদের জুড়ি নেই।

নির্ভেজাল মানুষ

এই স্বভাবের মেয়েরা যেমন তেমনটাই সকলের সামনে থাকেন অন্য কিছু হওয়ার চেষ্টা করেন না। আপনি একবার দেখেই বুঝবেন এর দোষ-গু’ণ কী কী রয়েছে। এই ধরনের মানুষ নিজেদের দোষ আড়াল করতে মিথ্যার আশ্রয় নেন না। এছাড়া মানুষ হিসাবেও খুব সৎ হন।