‘দাদু কেঁদো না, তুমিও বাড়ি ফিরে আসবে তাড়াতাড়ি’

অমিতাভ বচ্চনের আট’ বছরের নাতনি আরাধ্য এবং তার মা ঐশ্বরিয়া রাই করো’না মুক্ত হয়ে সোমবার নানাবতী হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফিরেছেন। হাসপাতাল থেকে বের হওয়ার আগে ছোট্ট আরাধ্যা তার দাদু অমিতাভ বচ্চনকে আশ্বা’স দিয়েছে যে, তিনিও শীঘ্রই বাড়ি ফিরে আসবেন।

সোমবার রাতে অমিতাভ বচ্চন তার ব্লগে জানিয়েছে যে ঐশ্বর্য এবং আরাধ্যা কোভিড-১৯ থেকে সুস্থ হয়ে ওঠার পর তার মনে স্বস্তি ফিরেছে। তিনি লিখেছেন, “… বৌউরানি ও নাতনি বাড়ি ফিরেছে। চোখ থেকে অঝোরে জল পড়ছে। তবে আরাধ্যা আমাকে কাঁদতে না করেছে। সে জানিয়েছে তুমি শীঘ্রই বাড়ি ফিরে আসবে। আমি অবশ্যই তাকে বিশ্বা’স করি।”

এদিকে হাসপাতালে লেখালেখির মধ্যেই নিজেকে নিয়োজিত করেছেন অমিতাভ বচ্চন। কবে হাসপাতাল থেকে মুক্তি পাবেন জানেন না তিনি। তবে তাঁর এই লেখা বইতে ছাপানোর কথা ভেবেছেন অ’ভিনেতা। গত দুদিনে ব্লগে তিনি জানিয়েছেন, কিভাবে তার ঘু’মের সময় তার মন চিন্তায় ভরে উঠছে।

হাসপাতালের ঠান্ডা ঘরে যখন অমিতাভ দুচোখের পাতা এক করতে পারছে না। তখন তাঁর বারবার মনে পড়ছে বাবা হরিবংশ রায় বচ্চনের কথা। রোববার রাতে একটি ভিডিও শেয়ার করে তিনি জানিয়েছেন, এই ভিডিওতে যে কবিতাটি আমি পাঠ করছি , সেটি আমা’র বাবার লেখা।

তিনি আরও জানিয়েছেন, হাসপাতালের একাকীত্বে আমা’র বাবাকে বারবার মনে পড়ছে। আমা’র বিনিদ্র একা থাকার রাত জুড়ে রয়েছে বাবার বলা কথা।

উল্লেখ্য শনিবার (১১ জুলাই) সন্ধ্যায় করো’না ভাইরাসে আ’ক্রা’ন্ত অমিতাভ বচ্চনকে মুম্বইয়ের নানাবতী হাসপাতালে নিয়ে হয়। পরে অমিতাভ নিজেই তার করো’না আ’ক্রা’ন্তের খবর ট্যুইট হ্যান্ডেলে শেয়ার করেছেন। সেই থেকে হাসপাতালেই আছেন তিনি।