সুশান্ত সিং রাজপুত অভিনীত ৭টি সিনেমা যা তাঁকে অবিস্মরণীয় করে রাখবে

২০২০, এই অভিশপ্ত বছরে আরও একবার শোকস্তব্ধ হলো বলিউড। সাথে, গোটা দেশ। মাত্র ৩৪ বছর বয়সে বান্দ্রায় নিজের ফ্ল্যাটে পাওয়া গেল সুশান্ত সিং রাজপুতের ঝুলন্ত দেহ। আজ ভারতীয় ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি একজন হিরো নয়, বরং সঠিক অর্থে একজন অভিনেতা হারিয়েছে।

দিল্লি কলেজ অব ইঞ্জিনিয়ারিং-এর প্রবেশিকা পরীক্ষায় সপ্তম স্থান পেয়েছিলেন। পদার্থবিজ্ঞানের অলিম্পিয়াডে জয়ী হয়েছিলেন। হতেই পারতেন মেধাবী, উচ্চপদস্থ চাকুরে। কিন্তু তার পরিবর্তে সুশান্ত সিংহ রাজপুত বেছে নিয়েছিলেন রুপোলি দুনিয়াকেই। মাত্র ৩৪ বসন্ত কাটিয়েই থেমে গেলেন সুশান্ত। ইদানীং তাঁর ছবি প্রত্যাশিত সাফল্য পাচ্ছিল না বক্স অফিসে। কিন্তু ঘুরে দাঁড়ানোর সুযোগ নিজেই নিজেকে দিলেন না। ইতি টানলেন জয়যাত্রায়। আজকের এই প্রতিবেদনের মাধ্যমে দেখে নিন অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের কিছু চিরস্মরণীয় সিনেমা।

১. ছিছড়ে – এই তালিকায় প্রথমেই আসে ২০১৯ সালের ৬ সেপ্টেম্বর প্রকাশিত ছবি ছিছড়ে। ছবির পরিচালক নিতেশ তিওয়ারি। ছবিতে অবসাদের বিরুদ্ধে মানুষের লড়াইয়ের তুলে ধরা হয়েছে। মূলত স্কুল কলেজের ছাত্র ছাত্রীরা ইদুর দৌড়ে ভাগ নিতে গিয়ে অনেকসময় জীবনকে প্রাণ খুলে বাঁচতে ভুলে যায়। এই ছবিতে শেখানো হয় যে জীবনে সবথেকে বেশী গুরুত্বপূর্ণ জীবন নিজেই। হার জিতের সংজ্ঞাটাও অসাধারণ ভাবে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে এই ছবিতে। আত্মহত্যা কখনোই বাঁচার উপায় হতে পারেনা, সেটাই দেখানো হয়েছে ছবিতে।এটিকে সময়ের পরিহাস বলা চলে নাকি জানা নেই, এই ছবির মূল অভিনেতাই অবসাদের গ্রাসে জীবন হারালেন।

২. কাই পো চে – ২০১৩ সালে প্রকাশিত ছবি কাই পো চে বলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে তার প্রথম ছবি ছিল। এই ছবিটি চেতান ভগৎ রচিত বই থ্রি মিস্টেকস অফ মাই লাইফ থেকে অনুপ্রাণিত ছিল।অভিষেক কাপুর পরিচালিত এই ছবিতে রাজকুমার রাও এবং অমিত সাধ এর সাথে পর্দায় দেখা যায় তাকে। তিন বন্ধুর বন্ধুত্ব এবং জীবনে এগিয়ে যাওয়ার পথের ওঠা নামা, সবকিছুকে কেন্দ্র করেই ছবিটি তৈরি হয়।

৩. পিকে – ২০১৪ সালে রাজকুমার হিরানির এই ছবিতে মিস্টার পারফেকশনিস্ট অর্থাৎ আমির খাn এবং আনুশকা শর্মার সাথে স্ক্রিনে দেখা যায় তাকে। বক্স অফিসে সুপার ডুপার হিট হয় এই ছবি। বিভিন্ন ধর্মের গোড়ামি এবং রক্ষণশীলতা এবং তার মধ্যেই ধর্মের বেড়া ভেদ করে প্রেমের জয় – এই ভাবনাকে কেন্দ্র করেই এই ছবিটি তৈরি হয়।

৪. এম এস ধোনি, দা আন টোলড স্টোরি – এই ছবিটিকে বলিউডের সবথেকে ভালো বায়োপিকগুলির মধ্যে একটি মনে করা হয়। ভারতীয় কিংবদন্তি খেলোয়াড় এবং প্রাক্তন অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনির জীবনের ওপর ভিত্তি করে এই ছবি তৈরি হয়। নিরাজ পাণ্ডে পরিচালিত এই ছবিতে ২০১৬ সালে প্রকাশ পায় যেখানে ধোনির চরিত্রে অসাধারণ অভিনয় করে দর্শকদের মন জিতে নেয় সুশান্ত।

৫. সন চিড়িয়া – অভিষেক চবে পরিচালিত এই ছবিটি ২০১৯ সালে প্রকাশ পায় যেখানে মনোজ বাজপাই, আশুতোষ রানা, ভূমি পেডনেকর এর সাথে স্ক্রিন ভাগ করেন তিনি। ১৯৭৫ সালের চম্বল গ্রামের প্রেক্ষাপটে একটি ডাকাত দলের জীবন কাহিনীকে এই ছবিতে ফুটিয়ে তোলা হয়।এটি একটি ভারতীয় অ্যাকশন মুভি যেখানে বিভিন্ন রকমের ভায়োলেন্স এবং তার সাথে বাঁচার লড়াইকে দেখানো হয়।

৬. কেদারনাথ – ২০১৮ সালে প্রকাশিত অভিষেক কাপুর পরিচালিত ছবি কেদারনাথ ২০১৩ সালের ভয়াবহ মর্মান্তিক কেদারনাথ দুর্ঘটনাকে কেন্দ্র করে তৈরি হয় যেখানে এক লহমায় স্বর্গ পুরি ধুলিস্মাৎ হয়ে গিয়েছিল, বহু লোক হারিয়েছিল নিজের প্রিয়জন, নিজেদের ভালোবাসার মানুষকে। সম্পূর্ণ গল্পকে একটি প্রেমকাহিনীর মড়কে মুড়ে প্রকাশ করা হয় যেখানে সুশান্ত সিং রাজপুতের সাথে স্ক্রিন ভাগ করে নেন সারা আলী খান। পবিত্র তীর্থস্থান কেদারনাথ কে ধর্মের রক্ষণশীলতা ও বেড়াজালের বাইরে ঐক্যস্থান হিসেবে তুলে ধরা হয় এই ছবিতে এবং তার সাথেই ফুটে ওঠে প্রকৃতির অসাধারণ সুন্দর এবং অন্যদিকে ভয়ঙ্কর বিধ্বংসী রূপ।

৭. শুধ দেশী রোম্যান্স – মণীশ শর্মা পরিচালিত ২০১৩ সালে প্রকাশিত এই ছবি মূলত হালকা ধাঁচের ছবি।মনোরঞ্জনের জন্য দুষ্টু মিষ্টি প্রেমের গল্প দেখতে যদি কারুর ইচ্ছে করে সেক্ষেত্রে এই ছবিটি তাদের বেশ ভালো লাগবে।এটি একটি রোম্যান্টিক কমেডি ড্রামা যেখানে রাজস্থানের প্রেক্ষাপটে সম্পর্কের তিনটি রূপ, এরেঞ্জ ম্যারেজ, লিভ টুগেদার এবং কমিটমেন্ট কে তুলনামূলক ভাবে তুলে ধরা হয়েছে।