একই পরিবারে কুরআনে হাফেজ ৩ দৃষ্টি প্র’তিবন্ধী শিশু!

একই পরিবারে কুরআনে হাফেজ ৩ দৃষ্টি প্র’তিব’ন্ধী শিশু! ইচ্ছা শক্তির উপর নির্ভর করে অনেক কিছুই সাধন করা সম্ভব।যেমনটা অর্জন করেছে মিসরের একই পরিবারের তিন দৃষ্টি প্রতি’ব’ন্ধী শিশু!

মিসরের বানিসুইভ প্রদেশের একই পরিবারের দু’ভাই ও এক’বোন পবিত্র কুরআনকে তাদের হৃদয়ে গেথে নিয়েছে। যাকে কুরআনে হাফেজ বলা যায়।দৃষ্টি প্র’তিব’ন্ধী তিন’ভাই-বোনের মধ্যে এক’ভাই প্রাথমিক স্কুলের ছাত্র। পবিত্র কুরআন হেফজ প্রস”ঙ্গে সে জানায়, স্কুল

থেকে এসেই সে পবিত্র কুরআন তেলাওয়াত করার পাশাপাশি বিশ্ব বিখ্যাত কারিদের তেলাওয়াত শুনতো। এবং বাবা-মায়ের অত্যাধিক উদ্যোগ ও উৎসাহের ফলেই পবিত্র কুরআন হেফজ করতে সক্ষম হয় তারা।দৃষ্টি প্র’তিব’ন্ধী তিন শিশুর পিতা জানান, পবিত্র কুরআন থেকেই মানুষ উত্তম আদর্শ লাভ করে।

তাই তিনি শিশুদেরকে ছোট থেকেই কুরআনের প্রতি ভালোবাসা ও আকর্ষণ সৃষ্টিতে শিক্ষা দেন।পবত্রি কুরআনে হাফেজ তিন দৃষ্টি প্র’তিব’ন্ধী শিশুর চোখের চিকিৎসায় এগিয়ে এসেছেন মিসরের দাতব্য ও স্বেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠান ‘সানা আল-খাইর ফাউন্ডেশন’।

ফাউন্ডেশনের প্রধান মুস্তাফা যমযম জানিয়েছেন, তারা এই দৃষ্টি প্র’তিব’ন্ধী শিশুদের দৃষ্টি শক্তি ফিরিয়ে আনতে বিনামূল্যে চিকিৎসা প্রদান করবে।মিসরের এ ক্ষুদে তিন দৃষ্টি প্র’তিব’ন্ধী শিশু হাফেজ, মুসলিম উম্মাহর প্র’তিব’ন্ধী শিশুসহ সবার জন্য সাফল্য অর্জনে হোক অনুপ্রেরণা এবং আশার আলো।