চীনে অন্য ধ’র্মের মেয়ে বিয়ে করলেই ডলার পাচ্ছেন মু’সলিম’রা

চীনের উইঘুর প্রদেশের ম’সজিদগুলো সংস্কারের অভাবে জীর্ণশীর্ণ হয়ে গেছে। নতুন ম’সজিদ তৈরি, সংস্কার বা পুনর্নির্মাণের অনুমতি নেই।

পুরনো ম’সজিদ সংস্কার করতে হলে বৌদ্ধমন্দিরের আদলে নাকি গড়তে হবে। ধ’র্মীয় শিক্ষা নিতে হয় সংগো’পনে। পবিত্র হ’জ পালনকে নিরুৎসাহিত করা হচ্ছে।

হুই জে’লার লিউ কাউলান ও কাশগড়ের প্রাচীনতম ম’সজিদে জুমা’র নামাজ আদায়ে বাধা প্রদান করা হচ্ছে।

এসব ম’সজিদের প্রত্যেকটিতে এক হাজার মানুষ নামাজ আদায়কালে একশ’ জন পু’লিশ অ’স্ত্র ও লা’ঠি নিয়ে ম’সজিদের চারপাশে দ’ণ্ডায়মান থাকে প্রতি জুমাবার।

উইঘুরদের ইস’লামী পরিচয় ও সাংস্কৃতিক মূল্যবোধ বিনষ্ট করে দেয়ার উদ্দেশ্যে আন্তঃধ’র্মীয় বিয়েকে উৎসাহিত করা হচ্ছে।

মু’সলিম যুবকদের ৪০০ মা’র্কিন ডলার করে দেয়া হচ্ছে বৌদ্ধ মেয়েকে বিয়ে করার জন্য।

ইস’লামী পোশাক পরিধানে বিরত রাখার উদ্দেশ্যে মু’সলিম মেয়েদের ওপর চাপ সৃষ্টি করা হচ্ছে।

বিয়ে, তালাক, উত্তরাধিকার সংক্রান্ত মু’সলিম আইন ও বিধানের কার্যকারিতা সুকৌশলে মুছে ফেলার জন্য কর্তৃপক্ষ অ’ত্যন্ত তৎপর।

মা’দক দ্রব্যের অ’পব্যবহার, ধনী বৌদ্ধদের কাছে দরিদ্র মু’সলিম বালিকাদের বিক্রয়, দরিদ্রতা, অশিক্ষা এবং বেকারত্ব ঝিনজিয়াংয়ের মানুষের জীবনসঙ্গী হয়ে আছে।