এই নারীকে খুঁজে দিলে লাখ টাকা পুরস্কার দিবে প্রবাসী যুবক

রাজধানীর সাউথ ইস্ট ব্যাংকের বিভিন্ন এটিএম বুথ থেকে প্রতারণার মাধ্যমে ১৩ লাখ টাকা উত্তোলন করেছে এক নারী।

সাউথইস্ট ব্যাংকের বুথ থেকে টাকা তোলার সময় ধারণ করা ওই নারীর ছবি প্রকাশ করে

তাকে ধরিয়ে দেওয়ার আহ্বান জানানো হয়েছে পু’লিশের পক্ষ থেকে।আর টাকার মালিক

দুবাই প্রবাসী সাইফুল ইস’লাম ঘোষণা দিয়েছেন, ওই নারীর সন্ধানদাতাকে তিনি পুরস্কার হিসেবে দেবেন এক লাখ টাকা।

রোববার (১৯ জানুয়ারি) ঢাকা মেট্রোপলিটন পু’লিশের অনলাইন নিউজ পোর্টাল ডিএমপি নিউজে ওই নারীকে ধরিয়ে দেয়ার খবর প্রকাশ করা হয়। এটিএম বুথে স্থাপিত সিসি ক্যামেরার

মাধ্যমে তার ছবি সংগ্রহ করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পু’লিশের গোয়েন্দা বিভাগ। তার পরিচয় সনাক্ত করতে পু’লিশ সহায়তা চেয়েছে।

গত বছর ৯ নভেম্বর রমনা থানায় গিয়ে টাকা চু’রির অ’ভিযোগ করেন সাইফুল ইস’লাম। সেখানে বলা হয়, সাউথইস্ট ব্যাংকে তার হিসাবে থাকা ১৩ লাখ টাকা গায়েব হয়ে গেছে। তার

এটিএম কার্ডটিও পাওয়া যাচ্ছে না। সেই কার্ডেই তিনি পিন কোড লিখে রেখেছিলেন। ত’দন্তে

নেমে গোয়েন্দা পু’লিশ জানতে পারে, ২০১৯ সালের ৭ জুলাই থেকে ১৮ আগস্টের মধ্যে

বিভিন্ন সময়ে রাজধানীতে ওই ব্যাংকের ৬টি বুথ থেকে ওই অ্যাকাউন্টের টাকা তুলেছেন এক নারী।

গোয়েন্দা পু’লিশের অ’তিরিক্ত উপ-কমিশনার আশরাফউল্লাহ বলেন, ব্যাংক স্টেটমেন্টে

সাইফুলের অ্যাকাউন্ট থেকে যে সময় টাকা তোলা হয়েছে, ছয়টি বুথের সিসি ক্যামেরার ভি`ডিও যাচাই করে দেখা গেছে ওই সময়গুলোতে একজন নারীই টাকা তুলেছেন।

গতবছর মাঝামাঝি সময়ে ঢাকায় আসার পর কিছুদিন থেকে আবার দুবাই চলে যান সাইফুল।

নভেম্বর মাসে ফের ঢাকায় এসে সাউথইস্ট ব্যাংক থেকে টাকা তুলতে গিয়ে দেখেন অ্যাকাউন্টে টাকা নেই। ওই ব্যাংকের ডেবিট কার্ডও আর তিনি খুঁজে পাননি।

পু’লিশ কর্মক’র্তা আশরাফউল্লাহ বলেন, সাইফুলের বেশ কয়েকটি ব্যাংকের কার্ড রয়েছে।

গত বছর মাঝামাঝি যখন ঢাকায় আসেন তখন তার সাউথইস্ট ব্যাংক থেকে টাকা তোলার প্রয়োজন না হওয়ায় কার্ডের ব্যাপারে খুব নজর ছিল না।

নভেম্বরের প্রথম দিকে ঢাকায় এসে ওই ব্যাংক থেকে টাকা তোলার প্রয়োজন হয় সাইফুলের। কিন্তু মানিব্যাগ হাতড়ে দেখেন, অনান্য ব্যাংকের কার্ড থাকলেও সেখানে সাউথ ইস্ট ব্যাংকের

কার্ডটি নেই। ব্যাংকে গিয়ে দেখেন অ্যাকাউন্টে থাকা ১৩ লাখ টাকাও গায়েব। পরে ব্যাংকের পরাম’র্শেই তিনি মা’মলা করেন।

আশরাফউল্লাহ বলেন, অনেকগুলো কার্ড থাকায় কার্ডেই পিন কোড লিখে রেখেছিলেন বলে

সাইফুল আমাদের জানিয়েছেন। তার ধারণা, খুব কাছের কেউ কৌশলে মানিব্যাগ থেকে কার্ডটি চু’রি করেছে এবং ওই নারীকে দিয়ে টাকা তুলিয়ে নিয়েছে।

ভি`ডিও ফুটেজে পাওয়া নারীর ছবি দেখানো হলে সাইফুল তাকে চেনেন না বলে গোয়েন্দা পু’লিশকে জানিয়েছেন।

পু’লিশ কর্মক’র্তা আশরাফউল্লাহ বলেন, ওই নারীর সন্ধান যে দিতে পারবে, তাকে এক লাখ টাকা পুরস্কার দেওয়া হবে বলে সাইফুল আমাদের জানিয়েছেন। ওই নারীর খোঁজে সহায়তা

চেয়েছে পু’লিশ। এই নারীর কোনো পরিচয় কিংবা তথ্য পাওয়া গেলে ডিবির সিরিয়াস ক্রা’ইম ইনভেস্টিগেশন বিভাগের অ’তিরিক্ত উপপু’লিশ কমিশনার আশরাফউল্লাহর (০১৭১৩৩৯৮৫২৭) সঙ্গে যোগাযোগ করার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।