চাঁদপুরের ঘটনায় জামায়াত নেতার দায় স্বীকার

চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে পূজামণ্ডপ ও মন্দিরে হামলার ঘটনায় দায় স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছেন জামায়াত নেতা কামালউদ্দিন আব্বাসী।
বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় চাঁদপুরের জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম আদালতে এ জবানবন্দি দেন তিনি। রাতেই তাকে কারাগারে পাঠানো হয়।

এর আগে, বৃহস্পতিবার সকালে গ্রেফতার করা হয় কামালউদ্দিন আব্বাসীকে।

গত ১৩ অক্টোবর রাত ৮টার পর হাজীগঞ্জ বাজারে শ্রী শ্রী লক্ষ্মী নারায়ণ জিউ আখড়া ও পাশের রামকৃষ্ণ মিশন মন্দিরে হামলা করে একদল দুর্বৃত্ত। ঐ সময় পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নেয়ার চেষ্টা করলে হামলাকারীদের সঙ্গে সংঘর্ষ হয়। এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে ১০টি মামলা করে। এসব মামলায় অজ্ঞাত প্রায় দুই হাজার ব্যক্তিকে আসামি করা হয়। পরে জামায়াত নেতা কামালউদ্দিন আব্বাসীসহ ২৯ জনকে গ্রেফতার করা হয়।

চাঁদপুরের পুলিশ সুপার মিলন মাহমুদ জানান, হাজীগঞ্জের ঘটনার আশপাশে থাকা সিসি ক্যামেরার ফুটেজ দেখে হামলায় জড়িতদের গ্রেফতার করা হচ্ছে।

চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে পূজামণ্ডপ ও মন্দিরে হামলার ঘটনায় দায় স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছেন জামায়াত নেতা কামালউদ্দিন আব্বাসী।
বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় চাঁদপুরের জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম আদালতে এ জবানবন্দি দেন তিনি। রাতেই তাকে কারাগারে পাঠানো হয়।

এর আগে, বৃহস্পতিবার সকালে গ্রেফতার করা হয় কামালউদ্দিন আব্বাসীকে।

গত ১৩ অক্টোবর রাত ৮টার পর হাজীগঞ্জ বাজারে শ্রী শ্রী লক্ষ্মী নারায়ণ জিউ আখড়া ও পাশের রামকৃষ্ণ মিশন মন্দিরে হামলা করে একদল দুর্বৃত্ত। ঐ সময় পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নেয়ার চেষ্টা করলে হামলাকারীদের সঙ্গে সংঘর্ষ হয়। এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে ১০টি মামলা করে। এসব মামলায় অজ্ঞাত প্রায় দুই হাজার ব্যক্তিকে আসামি করা হয়। পরে জামায়াত নেতা কামালউদ্দিন আব্বাসীসহ ২৯ জনকে গ্রেফতার করা হয়।

চাঁদপুরের পুলিশ সুপার মিলন মাহমুদ জানান, হাজীগঞ্জের ঘটনার আশপাশে থাকা সিসি ক্যামেরার ফুটেজ দেখে হামলায় জড়িতদের গ্রেফতার করা হচ্ছে।

চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে পূজামণ্ডপ ও মন্দিরে হামলার ঘটনায় দায় স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছেন জামায়াত নেতা কামালউদ্দিন আব্বাসী।
বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় চাঁদপুরের জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম আদালতে এ জবানবন্দি দেন তিনি। রাতেই তাকে কারাগারে পাঠানো হয়।

এর আগে, বৃহস্পতিবার সকালে গ্রেফতার করা হয় কামালউদ্দিন আব্বাসীকে।

গত ১৩ অক্টোবর রাত ৮টার পর হাজীগঞ্জ বাজারে শ্রী শ্রী লক্ষ্মী নারায়ণ জিউ আখড়া ও পাশের রামকৃষ্ণ মিশন মন্দিরে হামলা করে একদল দুর্বৃত্ত। ঐ সময় পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নেয়ার চেষ্টা করলে হামলাকারীদের সঙ্গে সংঘর্ষ হয়। এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে ১০টি মামলা করে। এসব মামলায় অজ্ঞাত প্রায় দুই হাজার ব্যক্তিকে আসামি করা হয়। পরে জামায়াত নেতা কামালউদ্দিন আব্বাসীসহ ২৯ জনকে গ্রেফতার করা হয়।

চাঁদপুরের পুলিশ সুপার মিলন মাহমুদ জানান, হাজীগঞ্জের ঘটনার আশপাশে থাকা সিসি ক্যামেরার ফুটেজ দেখে হামলায় জড়িতদের গ্রেফতার করা হচ্ছে।