জেলে বসে কোরআন-গীতা পড়ছেন আরিয়ান খান

মা’দককা’ণ্ডে গ্রে’ফ’তারের পর বর্তমানে কা’রাগারে রয়েছেন বলিউডের কিং খান খ্যাত অভিনেতা শাহরুখ খানের ছেলে আরিয়ান খান। বর্তমানে আর্থার রোডের জে’লে দিন কা’টছে আরিয়ান খানের। বলিউড সুপারস্টারের ছেলে হলেও কোনো বাড়তি সুবিধা দেওয়া হচ্ছে না তাকে। জে’লে কাউন্সেলিং চলছে আরিয়ানের।

ভবিষ্যতে যাতে একজন দায়িত্বশীল সুনাগরিক হয়ে উঠতে পারেন এ তারকা-সন্তান, সে চেষ্টাই করছেন মা’দক নি’য়ন্ত্রণ ব্যুরোর কর্মকর্তারা। এমনকি কোরআন, গীতা, বাইবেলের মতো ধর্মগ্রন্থও পড়তে দেওয়া হয়েছে আরিয়ান খানকে। খবর- ইন্ডিয়া টিভি।

২ অক্টোবর রাতে মুম্বাই থেকে গোয়াগামী একটি বিলাসব’হুল প্রমোদতরিতে আয়োজিত মা’দ’ক পার্টিতে অভি’যান চা’লায় মা’দক নিয়ন্ত্রণ ব্যুরো (এনসিবি)। সেখান থেকেই আ’টক হন আরি’য়ানসহ অনেকে। প্রায় ১৫ ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদের পর আরিয়ান খানকে গ্রে’ফতার দেখায় এনসিবি। পরে আ’দালত তাকে জে’লে পাঠান।

জে’লে আরিয়ানসহ গ্রেফ’তার প্রত্যেকের কাউন্সেলিংয়ের দায়িত্বে রয়েছে একটি সমাজসেবী সংগঠন এবং এনসিবি কর্মকর্তা সমীর ওয়াংখেড়ে। তাদের কাছেই আরিয়ান প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন, ছাড়া পেলে নে’শা করা ছেড়ে দেবেন। মানুষের জন্য কাজ করবেন। শুধু তাই নয়, যেকোনো খারাপ কাজ থেকে নিজেকে দূরে রাখবেন। দুঃস্থদের সাহায্য করবেন এবং তাদের আর্থি’কভাবেও সাহায্য করবেন।

এনসিবি আধিকারিক সমীর ওয়াংখেড়ে জানিয়েছেন, তারা প্রতিদিন দুই থেকে তিন ঘণ্টা ধরে কথা বলছেন আরিয়ানসহ বাকি অভিযু’ক্তদের স’ঙ্গে। এনসিবিকে আরি’য়ান বলেছেন, ছাড়া পেয়ে এমন কিছু করব, যাতে আপনারা গর্ববো’ধ করবেন। ২০ অক্টোবর পর্যন্ত আর্থার রোড জে’লেই থাকতে হচ্ছে আরিয়ানদের। সেদিনই তার জা’মিনের পরবর্তী শুনানি হবে।