২২ বছর বয়সের মধ্যে মেয়েদের বিয়ে না হলে যে ৫ টি সমস্যার মুখোমুখি হতে হয় !

বর্তমানে নারী পুরুষের সমান অধিকার সভ্যতার অনেক এগিয়ে গেছে কিন্তু সমাজে প্রচলিত ধ্যান-ধারণা আজও রয়ে গেছে অচিরে। অনেকেই এখনো মনে করে একটি মেয়ের জীবনের মূল লক্ষ্য হলো বিয়ে।সংসারে মেয়েদের প্রকৃত স্থান। আরে ধারণাটাই আজও মানুষের মনে কুসংস্কার এর মত গেথে আছে।

দ্বিতীয়তঃ কোন বিয়ের বাড়িতে বা অনুষ্ঠান বাড়িতে অবিবাহিত মেয়েরা গেলে সেখানে নিজের মনির আনন্দে থাকতে পারেন না সেখানেও একই রকম প্রশ্নের মুখোমুখি হতে হয় যখন কোন মেয়ে তার কাজের সুত্রে বাইরে যায় আর চারপাশে লোকজনের বিয়ে হয় তখন তাদের শুনতে হয় কেন তার এখনো বিয়ে করোনা

যদি একটু বেশি বয়স হয়ে যায় তাহলে কোন অনুষ্ঠান বাড়িতে গিয়ে একটা অস্বস্তিকর পরিস্থিতির মধ্যে পড়তে হয় কারণ দেখে খা’রাপ লাগে যখন সমবয়সীরা স্বামীর সঙ্গে ঘটছে অথচ নিজে সঙ্গীবিহীন

আরও পড়ুন-নিখিলের সঙ্গে অন্তরঙ্গতার ছবি পোস্ট করলেন নুসরত- সমালোচনার মুখে সাংসদ

তবে মেয়েদের নিজের পায়ে দাড়ানো খুব প্রয়োজননীয় তাই লোকে কী’’ বললো তা না ভেবে নিজের জন্য যেটা ঠিক সেটা বাছুন আর বাবা মায়ের উচিত নিজের মেয়ের পাশে দাঁড়ানোর সাহস যোগানোর যাতে হীনমন্যতা না তৈরী হয়।

আরও পড়ুন-আবারো প্রেমে মজলেন শ্রাবন্তী, প্রেমিকের বয়স বাবার থেকেও বেশি! পাত্র কে চেনেন?

কোন মেয়ের বয়স একটু বাড়লে আত্মীয় প্রতিবেশী তার বিয়ের ব্যাপারে অনেক প্রশ্ন করে যা একটি অবিবাহিতা মেয়ের পক্ষে অস্বস্তির কারণ হয়ে দাঁড়ায় আসুন দেখে নিই 22 বছর পেরিয়ে গেলে একটি মেয়েকে কি কি সমস্যার সম্মুখীন হতে হয় প্রথমত -বাড়ির ভিতর থেকে রোজ রোজ মেয়ের বিয়ে না দিতে পারার জন্য মা বাবাকে হা-হুতাশ করতে শোনা যায় নিজের বাবা মাকে এরকম চিন্তা করতে দেখি তারা নিজেরাও confidence হারিয়ে ফেলে।